shishuke-paykhana-shikhha-potty-training-deowar-5ti-upay

এই একটা কাজ নিয়ে মা বাবার কষ্টের শেষ থাকে না! অনেক বাচ্চাদেরই বেশি সময় লাগে এবং মা বাবা ক্লান্ত হয়ে যান। তবে এমন কিছু উপায় আছে যার সাহায্যে আপনি কাজটি সহজ করতে পারেন। এই ৫ টি উপায় দিলাম যাতে এই কাজ সোজা হয়ে যায় আপনাদের জন্য:

১. শক্তিবৃদ্ধি

যত পারবেন প্রশংসা করুন। প্রথম বার না হলেও তাকে বলুন আপনি ওর চেষ্টায় গর্বিত এবং সেও খুশি হয়ে যাবে!

বা আরেকটা উপায় এই যে তাকে বলুন ঠিক করে করলে পছন্দের খেলনা বা খাবার দেবেন। তখন সে মন প্রাণ দিয়ে চেষ্টা করবে ঠিক করতে!

২. মজা করুন

ব্যাপারটাকে মজার করে তুলুন যাতে শিশু কাজটা করতে উত্সুক হয়। যেমন সুন্দর দেখতে কমোড, কার্টুন বা সুপারহিরো দেওয়া কমোডের সিট, ইত্যাদি। এই রকম করলে শিশু মজা পাবে ও ঠিক করে করবে।

৩. ধীর গতিতে চলুন

বাচ্চাদের শিখতে সময় লাগে তাই প্রথম দিনই সবকিছু ঠিক করে হবে এমনটা আশা করবেন না। আস্তে আস্তে চলুন ও ধৈর্য ধরে চলুন, আপনার শিশু নিশ্চই শিখবে! শিশুকে জল খাওয়ানোর অভ্যাস করুন; জল বেশি পান করলে খাবার হজম হয় ভালভাবে ও পায়খানার চাপ পড়ে। এতে আপনার কাজ সহজ হয়ে উঠবে।

৪. ধৈর্য

তাড়াহুড়ো করবেন না, রাগ করবেন না ও চেচাবেন না। পায়খানা করার জন্য শিশু তৈরী কিনা দেখুন আগে। আপনি তাড়াহুড়ো করে রাগ দেখালে শিশুর মন খারাপ হবে এবং সে কাজটা করতে ভয় ও লজ্জা পাবে। শিশুকে সময় ও আদর দিন, সব ঠিক হয়ে যাবে।

৫. সময় ঠিক করবেন

৩০ মিনিট বা এক ঘন্টার এলার্ম ঠিক করুন-যাতে এই সময় কাটলেই শিশুকে বাথরুম নিয়ে যেতে পারেন। এতে শিশু বুঝবে কখন তার যাওয়া দরকার এবং কখন নয়। তার সাথে সাথে এও বুঝবে যে পায়খানা করার একটি নিষদিষ্ট সময় বজায় রাখা ভাল, যা সে সারাজীবন বজায় রাখবে।

আশা হারাবেন না। সময় লাগলেও সবকিছু ঠিকই হবে!

Leave a Reply

%d bloggers like this: