12-ti-jinis-ja-kokhono-swamir-jonyo-bodlaben-na-bangla

বিবাহের সাথে জীবনে অনেক পরিবর্তন আসে। কিন্তু নিজেকে কখনো বদলাবেন না। আপনি নিশ্চই আপনার স্বামীকে ভালোবাসেন। কিন্তু মনে রাখবেন যে আপনি একজন স্বাধীন মহিলা এবং কিছু জিনিস এমন আছে যা আপনি আপনার স্বামীর কথা ভেবেও বদলাবেন না।

১.আপনার পরিচয়

যদিও রীতি অনুযায়ী আপনার নিজের উপাধি বিবাহের পর বদলানো উচিত কিন্তু না করলে কি খুব ক্ষতি হবে কারুর? এবং এটি করতে আপনার স্বামীও আপনাকে জোড় করতে পারেন না। আপনি একজন স্বাধীন মহিলা এবং আপনার নিজের প্রতি এই আত্মসম্মানবোধই আপনাকে সকলের এত পিয় করে তুলেছে।

২. আপনার স্বপ্ন

আপনার স্বপ্নগুলি তো আপনার চরিত্রকে গড়ে তোলে! এগুলি ত্যাগ করবেন না; এগিয়ে যান ও স্বপ্ন চরিতার্থ করুন!

৩. বিশ্বাস ও মতামত

এগুলি বদলাবার অধিকার কারো নেই। তাই কারুর কথা না শুনে নিজের বিশ্বাসে টিকে থাকুন! হ্যাঁ, হয়তো কিছু পরিস্থিতির স্বীকার হলে আপনাকে নিশ্চই মানিয়ে নিতে হবে, কিন্তু তা বলে অবশ্যই নিজের আত্মসম্মানকে জলাঞ্জলি দিয়ে নয়।

৪.কর্মজীবনের সিদ্ধান্ত

বিবাহ হল জীবনের একটি নতুন পর্ব কিন্তু এটি কর্মজীবনের শেষ হতে পারে না! হৃদয়ের কথা শুনে তাই করুন যা করতে চান! আপনার পাশে থাকতে সবাই বাধ্য।

৫. নিজের পরিবারের খেয়াল রাখা

বিবাহের পর নিজের পরিবারের থেকে দুরে সরে যাবেন না। আপনার মা বাবা ও ভাই বোন আপনার সব থেকে বড় সাহায্য তাই ওদের সাথে সম্পর্ক শিথিল করবেন না।

৬. জামাকাপড়

অন্যদের কথা ভাববেন না, আপনার নিজের যা পড়তে ভালো লাগে তাই পড়ুন! আপনি যদি শালীনতা ও সভ্যতা বজায় রাখেন, তাহলে আপনার পছন্দে কোনো খারাপ নেই।

৭. আপনার শখ

বই পরা, রান্না করা, আঁকা বা যা আপনাকে আনন্দ দেয় তাই করুন! নিজের প্রতিভাকে ভুলবেন না কখনই! আপনার সম্পূর্ণ অধিকার আছে ভালোভাবে বাঁচার।

৮. আপনার বন্ধুবান্ধব

তারা সারাজীবন আপনার পাশে থেকেছেন তাই তাদের ত্যাগ করবেন না। এই সম্পর্কগুলি সারা জীবনের!

৯. স্বাধীনতা

সব কিছুর জন্য স্বামীর ওপর নির্ভর করবেন না। স্বামী বা আত্মীয়দের নিজের জীবনের সিদ্ধান্ত নিতে দেবেন না। বাধন খুলে নিজের স্বাধীনতার লড়াই লড়বেন!

১০. সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার

একা আপনি নিজের সিদ্ধান্ত নিতে পারেন, আর কেউ নয়! নিজের মতামত দিতে লজ্জা করবেন না!

১১. সোসাল মিডিয়া

প্রফাইল পিকচার বদলানো বা ফেসবুক একাউন্ট বন্ধ করবেন না। বিবাহের পর-বন্ধুদের সাথে,পরিবারের সাথে যত ইচ্ছা সেলফি তুলুন ও স্টেটাস আপডেট করুন!

১২. নিজের জন্য সময়

বিয়ের আগে হোক বা পরে, সকলের নিজের জন্য সময় দরকার। তাই আগেই ঠিক করে নেবেন যে দিনের কোন সময়টা একান্ত আপনার। সেই সময় কেনাকাটা করুন বা আরাম করুন, সেটি আপনার ব্যাপার!

Leave a Reply

%d bloggers like this: