apni-ki-jomoj-sontan-chan-ekahne-dekhun-jomoj-shishu-jonmer-podhoti

১. আপনার পরিবারের ব্যাকগ্রাউন্ড লক্ষ্য করুন

আমাদের জিন আমাদের জীবনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অংশগ্রহণ করে, কারণ তাদের উপস্থিতির কারণে বিভিন্ন লোকের চুল বা চোখের রঙ ভিন্ন হয় এবং একইভাবে নির্ধারণ করা হয় যে আপনি যমজ শিশু জন্ম দিতে পারেন কি না| অতএব, আপনার পরিবারের উভয় অংশে মা-বাবার ইতিহাস দেখুন এবং এভাবে জানতে পারেন যে, আপনার পরিবারে প্রথম সন্তানই যমজ হয়েছিল এমন কারুর ইতিহাস আছে কিনা এবং যদি থেকে থাকে তবে কত বছর আগে ঘটেছে। কিন্তু মনে রাখবেন যে, যদি আপনার পরিবারে কোনও যমজ বাচ্চা জন্ম না হয়ে থাকে তবে এর অর্থ এই নয় যে, আপনিও যমজ বাচ্চা হওয়ার আশা ছেড়ে দেবেন। হয়তো এটা কিছুটা কঠিন কিন্তু অসম্ভব নয়|

২. ভালোভাবে খাওয়াদাওয়া করলে ভালো ফল পাবেন

তাজা ফল, শুকনো ফল বা ভাল গুণে সম্পন্ন খাবার খেলে আপনি বেশি উর্বর হয়ে উঠবেন এবং আপনার উর্বরতা বেড়ে গেলে আপনার যমজ সন্তান হওয়ার প্রবণতা আরও বৃদ্ধি পাবে।

৩. খাদ্য পরিপূরক

ফোলিক অ্যাসিড ট্যাবলেট নারীর উর্বরতা বৃদ্ধি এবং উন্নত করার জন্য খুবই কার্যকরী। তাই, ফোলিক অ্যাসিড ট্যাবলেট খাওয়ার ফলে আপনার উর্বরতা বৃদ্ধি পাবে এবং এটি জোড়া জোড়া হওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে তুলবে। যতক্ষণ উর্বরতা বাড়বে, ততক্ষণ শুক্রাণুর জন্য আপনার ডিম্বাণুকে এটি উর্বর করে রাখবে এবং যখন একের পরিবর্তে আপনার ২টি ডিম পুষ্ট হবে, তখন যমজ সন্তান হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

৪. দুধ সমৃদ্ধ খাদ্য বেশি করে খান

আপনার উর্বরতা উন্নত এবং যমজ সন্তান হওয়ার প্রবণতা বৃদ্ধি করার জন্যে আপনাকে দুগ্ধজাত খাবার ভালো করে খেতে হবে কারণ দুগ্ধজাত পণ্যে যেই পুষ্টি থাকে তা আপনার হরমোন উন্নত করে এবং যমজ সন্তান জন্ম দেওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি করে।

৫. মাটির তলায় হত্তয়া সবজি খাওয়া

উর্বরতা উন্নতি করার পুষ্টিকর ক্ষমতাগুই সেসব সবজি থেকে পাওয়া যায় যা মাটির তলায় জন্মায় যেমন আলু, রাঙা আলু, বিট, ইত্যাদি। এই পুষ্টি আপনার যমজ সন্তানের জন্ম দেওয়ার ইচ্ছা পূরণ করতে পারে।

আমরা আশা করি আপনি এই পরামর্শগুলির সাথে একমত হবেন এবং এটি ভালভাবে গ্রহণ করবেন এবং অন্যান্য মহিলাদের সঙ্গে এই পোস্ট শেয়ার করতে ভুলবেননা।

দ্রুত গর্ভধারণ করার পরামর্শ জানতে এখানে ক্লিক করুন

Leave a Reply

%d bloggers like this: