মহিলাদের ব্যক্তিত্ব বুঝে যান তার জুতো দেখে

ব্যক্তিত্ব চেনার এক অসাধারণ উপায় হল জুতো। মনে আছে সেইসব দিনে আমাদের ঠাকুমা দিদিমাদের কথা? বিয়ের সম্বন্ধ দেখার সময় পায়ের দিকে তাকানো হত। এমনকি বিয়েতে জুতো দেয়ার একটা প্রথাও রয়েছে।

আপনার সঙ্গিনী চিনতে যাতে অসুবিধা না হয়, তার জন্যে আমরা এখানে কয়েকটি জুতোর ধরণ দিয়ে সঙ্গিনীর ব্যক্তিত্ব চেনার সহজ উপায় বলে দিলাম। দেখুন, আপনি কেমন সঙ্গিনী চান আপনার জীবনে।

১. লাল স্টিলেটো

আপনার সঙ্গিনী যদি লাল বা অন্যান্য উজ্জ্বল রঙের জুতো পড়েন বা পড়তে ভালোবাসেন যেমন ধরুন স্টিলেটো বা হাই পেন্সিল হিল, তার মানে হল আপনার সঙ্গিনী বেশ সাহসী, অতুলনীয় এবং ফ্যাশন পছন্দ করেন। এই ধরণের নারীকে বিয়ে করতে হলে আপনাকে ফ্যাশানের ব্যাপারে আগ্রহী হতে হবে।

২. কালো স্টিলেটো

কালো স্টিলেটো পড়া মহিলাদের প্রায়ই দেখতে পান? তাহলে বুঝে নেবেন পার্টি বা ডিস্কোতে যাওয়ার অভ্যেস আছে এই মহিলাটির। তাই এই মেয়েকে সঙ্গিনী করতে হলে পার্টি ম্যানার্স জেনে নিন কিন্তু। না হলে মুশকিলে পড়বেন।

৩. বুট বা কেট্স

যেসব মহিলারা বুট বা কেট্স ধরণের জুতো পড়েন ও প্রায়ই ভোরবেলায় হাটতে বেরোন, তার মানে হল তিনি হাব স্বাস্থ সচেতন। ফলে এমন সঙ্গিনী পেতে হলে ভুলেও যেন আপনার ভুঁড়ি না থাকে। তবেই গেল!

৪. ক্যানভাস

এমন কোনো এক মহিলা যার ছোট চুল, পরনে ঢলা টি-শার্ট আর জিন্স, পায়ে ক্যানভাস; ইনি হলেন একদম ‘টম বয়’। এই মহিলার থেকে সিনেমার মত প্রেম আশা করবেন না। বরং এই মহিলার সঙ্গে ক্রিকেট-ফুটবল নিয়ে আলোচনা করতে পারেন, তাতে উনি খয়ব খুশি হবেন।

৫. কর্পোরেট শু

পালিশ করা টিপটপ শক্ত পোক্ত জুতো মানেই বুঝে নিন ইনি একেবারে ‘কর্পোরেট লেডি’। নিয়ম কানুনের ব্যাপারে উনি খুব কড়া। আপনি বেহিসেবি হলে এমন মহিলাকে সঙ্গিনী বানান। আপনাকেও ইনি দায়িত্ব নিয়ে ‘মানুষ’ করে দেবেন।

৬. স্যান্ডেল

এই জুতোর ধরণকে বলে স্যান্ডেল। এই জুৎ পড়া মহিলারা হচ্ছেন আদ্যপান্ত প্রেমিকা। মন খারাপ হলে ওনার কাঁধে মাথা রাখতে পারবেন। প্রেম নিয়ে এই মহিলা সারাদিন স্বপ্ন দেখেন। এঁরা খুব যত্নশীল ও হন।

৭. কিটোস

সব সময়েই পায়ে কিটো জুতো পড়েন এমন মহিলা কেমন হতে পারেন আশা করি আপনি বুঝতেই পারছেন। সাজগোজ নেই বললেই চলে। অথছ ব্যাগ খুললে দেখতে পাবেন গুচ্ছ গুচ্ছ বই। এসব মহিলারা সাধারণত খুব পড়াকু হন। সাংস্কৃতিক আলোচনা পছন্দ করেন।

৮. হান্টার জুতো

চেইন টানা চামড়ার লম্বা হান্টার জুতো; এই মহিলাদের খবরদার বেঁধে রাখার চেষ্টাও করবেন না। এঁরা ঘুরতে ভালোবাসে এবং খামখেয়ালি স্বভাবের হয়ে থাকেন। এঁরা কখন কোথায় থাকবেন তাঁর কোনও ঠিক নেই। এঁদের এক কথায় বলে ‘বোহেমিয়ান’। আপনি যদি একজন বোহেমিয়ান হয়ে থাকেন, এই মহিলার সাথে হাত মেলান।

৯. ফ্লিপ ফ্লপ

যে কোনও পোশাকের সঙ্গে মানানসই ফ্লিপ-ফ্লপ পরেই এরা স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন। এঁরা স্বভাবের দিক থেকেও খুব ঠান্ডা ও সোজা মনোভাবের হয়, তাই এঁরা প্রেমিকা হিসেবেও ভাল হন। এঁদের সঙ্গে মানিয়ে নিতে অসুবিধা হয় না বললেই চলে। এক কথায় এঁরা খুব ‘ইজি গোয়িং’।

১০. স্নিকার

স্নিকার পড়া মেয়েরা ঘুরতে ভালোবাসেন। আপনার যদি ঘোরার নেশা থাকে, ইনি হলেন আপনার সঠিক ম্যাচ। এই ধরনের জুতো পড়া মহিলারা পর্যটন প্রেমী হন। এঁদের সঙ্গে বন্ধুত্ব করলেও আনন্দ পাবেন।

১১. যেসব মহিলারা এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করেন, নতুন জিনিসের ওপর ঝোঁক রাখেন তাঁরা প্রথমেই দোকানে এসে জিগেশ করেন নতুন কি ধরণের জুতো এলো বাজারে। কোন দোকানে নতুন কী ফ্যাশন এল, কোন ফ্যাশন নিয়ে কোথায় কি লেখা আছে, সমস্ত এঁদের নখদর্পণে। জুতো দেখেই বুঝতে পারছেন ফ্যাশন নিয়ে এক্সপেরিমন্ট করা এঁদের স্বভাব। তবে কেন্দ্র স্থিরতা কম হয়।

১২. আপনি কি আঁতেল সঙ্গিনী চান? মানে যেই মহিলা সব ব্যাপারে আগ বাড়িয়ে এসে জ্ঞান দেন; সে যেই ব্যাপারই হোক না কেন। ভান এমন করেন যেন উনি সকলের রক্ষাকর্ত্রী। দেখে নিন মহিলার পায়ে এই ধরনের জুতো আছে কি না।  

Leave a Reply

%d bloggers like this: