সি সেকশন জড়িত সব প্রশ্নের উত্তর

শিশুর জন্ম স্বাভাবিক ভাবে হতে পারে বা সি সেকশনের সাহায্যে। যদিও সি-সেকশানে সার্জারি দরকার তবুও এতে মা বা শিশুর কোনো ক্ষতি হয় না!তাও আপনার পক্ষে এটি জানা দরকার যে এতে কি হয়। মায়ের পেটে কর্তন করে শিশুকে বার করা হয়। ডাক্তাররা স্বাভাবিক প্রসবের জন্য যেতে বলেন হামেশাই।

যদি আপনি ঠিক করে থাকেন যে সি সেকশনই করবেন তো ডাক্তারের সাথে কথা বলে নিন।

১. কোন পরিস্থিতিতে সি সেকশন জরুরি?

 

প্লাসেন্টা জরায়ুর মুখ ঢেকে থাকলে

শিশুর মাথা নিচের দিকে না থাকলে

শিশু প্রসব না নিতে পারলে

শিশুর ওজন বেশি হলে

একাধিক শিশু হলে

২. সার্জারিতে সমস্যা হতে পারে?

রোগীর আগের অসুস্থতা জড়িত ওষুধের সমস্যা হতে পারে।

৩. কি সমস্যা হতে পারে?

এটি সব রোগীর জন্য আলাদা:

সংক্রমণ

অধিক রক্তপাত

রক্তের জমাট

অঙ্গে লাগতে পারে

অনাস্থিশিয়াতে সমস্যা

ভবিষ্যতের প্রসবে সমস্যা

শিশুর ক্ষতি

৪. ঝুঁকি কি হতে পারে?

মায়ের অধিক ওজন

শিশুর অধিক ওজন

সময়

মায়ের রক্ত কম

অকালীন প্রসব

এপিদিউরাল

৫.কোনো মানসিক সমস্যা হতে পারে?

শিশুর জন্ম ব্যথা ও আনন্দ দুটি আনে। সি সেকশানে সব মায়েরা আনন্দ পান না। এই সময়ে বাড়ির লোকে সাহায্য করতে পারেন।

৬. অপারেশনের সময় কে আপনার পাশে থাকবে?

কিছু হাসপাতাল স্বামীকে ঢুকতে দেন ও কিছু কারুকে না। শিশুর শরীর ঠিক না হলে স্বামী তাকে ধরতেও পারবেন না। এই নিয়ে আগেই ডাক্তারের সাথে কথা বলে নেবেন।

৭. কি অনাস্থিশিয়া ব্যবহৃত হবে?

দু রকমের হতে পারে। এপিদুরাল দিলে আপনার পিঠে দেবে ও তাতে অনেকক্ষণ আপনি ব্যথার থেকে মুক্তি পাবেন। স্পাইনাল ব্লক কম কষ্ট দেয় কিন্তু অল্প সময় পরেই ব্যথা আবার চালু হয়ে যায়. এপিদুরাল নেওয়াই ভালো।

৮. কতক্ষণ লাগে?

৪৫ মিনিট থেকে এক ঘন্টা লাগে। তবে আপানকে ওয়ান আগেই যেতে বলা হবে.৩-৪ দিনের মধ্যে ছেড়ে দেবে তবে ৬ সপ্তাহ লাগবে শরীর ঠিক হতে !

৯. সবার জন্য এক রকম কি?

কর্তন ও অনাস্থিশিয়া ছাড়া সব এক।

১০. সেলাই কিভাবে হবে?

ত্বকের ধরন দেখে দিসল্ভেবেল স্টিচ ও স্তেপেল দেবেন. বাড়ি ফেরার সময় উঠিয়ে নেওয়া হবে।

১১. স্তন্যপান কখন করব?

দাকাত্রকে বলবেন আপনি স্তন্যপান করাতে ইচ্ছুক এবং তিনি আপানর সাহায্য করে দেবেন!

সি সেক্শন সম্পর্কে আপনার যা ধারণা নেই
সি-সেকশন প্রসব পদ্ধতি নিয়ে মিথ্যে ধারণা ও আসল সত্য

Leave a Reply

%d bloggers like this: