অলস হওয়া খারাপ নয়

আপনাকে কি সবাই অলস বলে, ঠিক নয়, কারণ অলসদের নিয়ে সমাজে নানা ভাবে রসিকতা করা হয়। কিন্তু অলস মানুষের মধ্যে এক বিরল গুন আছে, সেই কথা কারুর জানা নেই। তবে জানুন অলস হবার পরও আপনার মধ্যে আছে এই গুন।


ফ্লোরিডা গাল্‌ফ কোস্ট ইউনিভার্সিটির সমীক্ষায় জানা গেছে অধিকতর বুদ্ধি আছে এমন মানুষ খুব বেশি এবং তাড়াতাড়ি একঘেয়েমি অনুভব করেন। তাই তাঁরা পছন্দ করেন চিন্তা করতে। বিপরীত দিকে কর্ম তৎপর মানুষের ক্ষেত্রে এটি অন্য হয়। তাঁরা কাগজ কলমে কাজ করে করে তাঁদের মনকে সক্রিয় রাখেন। কারণ, তাঁরা বেশিক্ষণ চিন্তা করতে পারেন না, এবং এতে তারা আরো বিরক্ত হয়ে যান।


কোনও সমস্যার নতুন সমাধান দেখতে পেলে আপনি সেই কাজকে উপভোগ করেন?

টড ম্যাকএলরয়ের নেতৃত্বাধীন এই দল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে থেকেই ৩০ জন চিন্তাশীল এবং ৩০ জন চিন্তা না করায় বিশ্বাসী এমন কিছু জন কে বেছে নেন। সাত দিন ধরে দুই দলের মানুষদের হাতেই একটা যন্ত্র বসিয়ে রাখা হয়, যা তাঁদের অ্যাক্টিভিটি লেভেল এবং চলাফেরা ট্র্যাক করতে থাকে। এই যন্ত্র থেকে ক্রমাগত তথ্য পাওয়া যেতে থাকে তারা কি ধরণের কাজকর্ম করে চলেছে সেই বিষয়ে।


এতেই জানা যাই যে অধিকতর বুদ্ধি আছে এমন মানুষ খুব দ্রুত একঘেয়েমি অনুভব করেন। এবং কর্মতৎপরদের বুদ্ধি সেই তুলনায় কম।

বিল গেটসের উক্তি দিয়েই বোঝা যায় যে, “কোনও কঠিন কাজ করার জন্য আমি একজন অলস মানুষকে বাছি। কারণ, একজন অলস মানুষই পারেন কোনও কঠিন কাজ সম্পাদনের সহজ পথটি বের করতে।” এতেই বোঝাই যায়, কেন বিল গেটস তথাকথিত অলস মানুষকে কোনও কঠিন কাজ দিয়ে নিশ্চিন্তে থাকেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: