দুষ্ট শিশুদের জীবন পথ সহায়ক

আজকের প্রজন্মের বাচ্চাদের জন্য অনেকের মুখেই সমালোচনা করতে শোনা যায়: তারা স্মার্টফোনে আসক্ত, তারা বাইরে পর্যাপ্ত সময় কাটায় না, তারা ঘরোয়া নয় … এবং তালিকাটি চলতেই থাকে।

কিন্তু একটি জিনিস কোন এক সম্পর্কে কথা বলা হয় যে কিভাবে চতুর বুদ্ধি আজ কাল ব্যবহার করা হয়ে থাকে। আজকের প্রজন্মের বাচ্চাদের নিয়ে সমালোচনা করা হচ্ছে: তারা স্মার্টফোনে আসক্ত, তারা বাইরে পর্যাপ্ত সময় কাটায় না, তারা ব্র্যাটের … এবং তালিকাটি চলে যায়। কিন্তু একটি জিনিস কিভাবে আজকাল চতুর বুদ্ধি পরিচালিত হয়।


এখনকার বাচ্ছারা কোনো স্মার্টফোনকে কিভাবে আনলক করতে সেই ফোনের মালিকের থেকে একবার যায়। আমরা তাদের ক্রেডিট দিয়ে থাকি যাতে তারা আরো দক্ষ হতে পারে। বাচ্ছারা আজকাল তাদের বুদ্ধির সঙ্গে বিশ্বের বিভিন্ন শো এর উপরও ছাপ ফেলেছে,তারা এলেন ডিজিনার্স শো এবং এর হোমওয়ার্কের ছবি ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম এবং টাম্বলারের মত সোশাল মিডিয়ার প্ল্যাটফর্মে রাউন্ড তৈরি করছে। স্কুল এর নোট হিসেবেও তারা অনেককিছু ব্যবহার করতে শিখেছে।

একটি নোটের হাইলাইট করে একটি বাচ্চা (নাথান) লিখেছেন “যদি তিনি সারা রাত ভিডিও গেম না খেলে,তবে তাকে স্কুল থেকে বের করে দেওয়া হবে “।

নীচে বাবা-মাদের একত্রিত করার চেষ্টা করার জন্য বাচ্চাদের সবচেয়ে সুন্দর উদাহরণ দেয়া হলো।

Leave a Reply

%d bloggers like this: