ছোট হলেও অনেক গুন

আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই আছে যারা লংকার গুঁড়োর থেকেও গোলমরিচের গুঁড়ো খাতে পছন্দ করেন। সে আপনি চাইনিজ খান কিংবা ডিম্সেদ্ধ, একটু গোলমরিচের গুঁড়ো ছড়িয়ে নিলে বেশ ভালই লাগে। অনেকে আবার মনে করেন, গোলমরিচ খেলেই বোধহয় পেট গরম করে। কিন্তু আয়ুর্বেদিক মেডিকেল রিসার্চ-এর মতে, শুধু স্বাদই নয়, গোলমরিচের কয়েকটি উপকারিতাও রয়েছে!

১.শিশুদের দাঁতে ক্যাভিটি বা ব্যথা থাকলে, গোলমরিচ সেই ব্যথা দূর করতে সাহায্য করে।

২.গোলমরিচ খেলে ঘাম বেশি হয়। ফলে শরীর থেকে অতিরিক্ত টক্সিন কমতে থাকে।

৩.গোটা মরিচের খোসা অতিরিক্ত মেদ ঝরাতে সাহায্য করে। ফলে গোলমরিচ দেওয়া খাবার খেলে কমতে থাকে শরীরের অতিরিক্ত মেদ।

৪.গোলমরিচ পেটে হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড ক্ষরণের মাত্রা বাড়ায়। তাই এটি হজমে সাহায্য করে। আর হজম ঠিক থাকলে কোষ্ঠকাঠিন্য, ডায়েরিয়ার মতো সমস্যাকে এড়ানো যায়। পেটে গ্যাস হওয়া রুখতেও গোলমরিচের জুড়ি মেলা ভার।

৫.নাক বন্ধ থাকা, হাঁপানি ইত্যাদি সারাতে সাহায্য করে গোলমরিচ। এক কাপ গরম জলে এক টেবিল চামচ গোলমরিচ এবং দুই টেবিল চামচ মধু দিয়ে খেলে শ্লেষ্মা দূর হয়।

৬.যাঁরা অতিরিক্ত মাত্রায় ধূমপান করেন, গোলমরিচ তেলের গন্ধ নিয়মিত সেবন করলে, বা সরাসরি ভাবে গোলমরিচ খেলে ধূমপানের অভ্যেস কমতে থাকে।

৭.ত্বকের রোগ থাকলে তার চিকিৎসাতেও কাজে লাগে গোলমরিচ। গোলমরিচ গুঁড়ো করে, স্ক্রাবার হিসেবে ব্যবহার করলে ত্বক থেকে মৃত কোষ দূর হয়। ফলে ত্বকে সহজে অক্সিজেন চলাচল করতে পারে। এছাড়া পিগমেন্টেশন ও অ্যাকনে দূর করতেও সাহায্য করে গোলমরিচ।  

Leave a Reply

%d bloggers like this: