পুজোয় নিজেকে ক্লান্তিমুক্ত ও সতেজ দেখাতে হলে কি করবেন?

গরমে নাজেহাল হয়ে যাচ্ছে সবাই। এদিকে পুজোর প্যান্ডেল হপিং শুরু হয়ে গিয়েছে। এই অবস্থায় ঠাকুর দেখতে বেরিয়ে ভিড় আর ঘাম সামলে কেমন করে থাকবেন ঝকঝকে। মেনে চললে পুজোর ক’দিন আপনি থাকবেন সকলের চোখে পরম আকর্ষণীয়।

১. স্নান করার সময়ে জলে কয়েকটা নিমপাতা ফেলে দিন। অথবা কয়েক ফোঁটা ওডিকোলন বা গোলাপ জল। দেখবেন স্নানের পরে তরতাজা হয়ে উঠেছেন।

২. বেরনোর আগে পাতলা কাপড়ে জড়িয়ে নিন বরফের টুকরো। তার পর সেই বরফের পুঁটলি মুখে ঘষুন। সরাসরি বরফ মুখে না ঘষাই ভাল। কেননা মুখের ত্বক বেশ স্পর্শকাতর। বেশ কিছুক্ষণ মুখে বরফ ঘষার পরে মুখ ধুয়ে নিন। ঘাম অনেক কম হবে ও ফ্রেশ দেখাবে।

৩. জলটা বেশি করে খান; অনেকেই এই বিষয়টি অবহেলা করেন। কিন্তু এই গরমে জল পরিমাণ মতো না খেলে শরীর ক্লান্ত দেখাবেই। বেশি জল খেতে ভাল না লাগলে জলের সঙ্গে সঙ্গে ফলের রস বা ডাবের জলও খেতে পারেন। ফ্লুইড শরীরে গেলে শরীর তরতাজা থাকবে।

৪. চেষ্টা করুন সুতির জামাকাপড় পরতে। বিশেষ করে দিনের বেলায় সাদা বা হাল্কা রংয়ের জামা পরলেই ভাল।

৫. যদি দুপুরবেলা বেরতে হয়, খেয়াল রাখুন সূর্যের তাপ যেন সরাসরি মাথায় না লাগে। মেয়েরা মাথায় ওড়না বা স্কার্ফ বেঁধে রাখুন। ছেলেরা টুপি পরে রাখুন।

৬. মেয়েরা ব্যাগে রাখুন ওয়াটার স্প্রে, ওয়েট টিস্যু। ক্লান্ত লাগলেই ওয়েট টিস্যু দিয়ে মুখ মুছে ওয়াটার স্প্রে করে নিন। সঙ্গে রাখতে পারেন অ্যালোভেরা জেলও। এটাও মুখে মেখে নিলে মুখের ত্বকের জেল্লা ফিরে আসবে।

৭. যতই সাজুন, চোখে ক্লান্তি ফুটে উঠলে সবকিছুই মাটি। কাজেই এই দিকটায় খেয়াল রাখুন। চায়ের লিকার ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করে তুলোয় ভিজিয়ে চোখ বন্ধ করে আস্তে আস্তে বুলিয়ে নিন। তার পর ২০ মিনিট চোখ বন্ধ করে রাখুন। এ বার জল দিয়ে চোখ ধুয়ে ফেলুন। গোলপ জল দিয়েও চোখ ধুতে পারেন। চোখ সতেজ থাকবে। 

Leave a Reply

%d bloggers like this: