গর্ভাবস্থায় যৌনতা সম্পর্কে প্রচলিত ও হতাশাজনক ভুল ধারণাগুলি

এই বিষয়ে প্রায় অনেক আলোচনা প্রচলিত আছে এবং গর্ভবতী মহিলারা অনেক সময় বুঝতে পারেননা কোনটা বিশ্বাস করবেন এবং কোনটা নয়। শুরুর জন্য, গর্ভাবস্থায় যৌন মিলনে কোনও ভুল নেই, তবে প্রথম ত্রৈমাসীর সময় এবং ডেলিভারির চার সপ্তাহ আগে এটি এড়িয়ে যাওয়া উচিত।

অতএব, এটি গুরুত্বপূর্ণ যে আপনি গর্ভাবস্থায় যৌনতা সম্পর্কে সাধারণ মিথ্যার শিকার হবেন না।

১. গভীর অনুপ্রবেশ শিশুর ক্ষতি করতে পারে

এটি হল সবচেয়ে বড় মিথ্যে। অধিকাংশ মানুষ মনে করে যে গর্ভাবস্থায় যৌনতা শিশুকে ক্ষতি করে এবং তার উন্নয়নে প্রভাব ফেলতে পারে। কিন্তু, আসলে গর্ভাবস্থায় যৌনতা কোনওভাবেই শিশুটির বিকাশকে প্রভাবিত করতে পারে না সে শারীরিক হোক বা স্নায়ুতন্ত্রের ক্ষেত্রে হোক। কারণ যে অ্যামনিয়োটিক থ্যালাসে ভ্রূণকে রক্ষা করে এবং জরায়ুমুখের মুখটি একটি স্ফুলিঙ্গ প্লাগ দিয়ে সিল করা হয় তাতে গভীর অনুপ্রবেশ শিশুকে কোন ভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত করবে না।

২. প্রচণ্ড উত্তেজনা থেকে সংকট ও গর্ভপাত হতে পারে

একটি গর্ভবতী মহিলার জন্য যৌন মিলনের পর সামান্য সংক্রমণ হওয়া সম্পূর্ণ স্বাভাবিক এবং যদি না আপনি উচ্চ ঝুঁকি গর্ভাবস্থায় না থাকেন, উত্তেজনা আপনার জন্যে ক্ষতিকারক না। দুটি ভিন্ন ধরনের সংকোচন এই সময় হয়, একটি উত্তেজনার আগে এবং অনুভূতির পরে এবং এগুলির ফলে গর্ভপাতের কোন ভয় থাকেনা।

৩. প্রি ম্যাচিওর লেবার

এটি কিছুটা সত্য। একটি উচ্চ ঝুঁকির গর্ভাবস্থার ক্ষেত্রে বা যেসব নারীর প্রি ম্যাচিওর লেবারের ​​ইতিহাসে আছে, তাদের জন্যে মাঝে মাঝে যৌনসম্ভোগের ফলে প্রি ম্যাচিওর লেবারের সম্ভাবনা হতে পারে। এই ক্ষেত্রে কিছু সতর্কতা অবলম্বন করা বিজ্ঞতার কাজ। যৌনতার সময় কনডম ব্যবহার করা একটি নিরাপদ উপায়। প্রোস্টগ্ল্যান্ডিনস নামক একটি হরমোন যা শুক্রাণুতে থাকে তা গর্ভাধান সংকোচনে উদ্দীপিত করতে পারেন।

৪. এটা বেদনাদায়ক

গর্ভধারণের সময় যৌনতা বেদনাদায়ক হবেনা যদি আপনি সেই মুহূর্তে সঠিক ভঙ্গি ও আকার গ্রহণ করেন। বরং গর্ভাবস্থার সময় মিলনের জন্যে অনেকটা সময় প্রয়োজন হতে পারে, এবং দম্পতিকে ধীরে ধীরে এগোতে হবে। উদ্বিগ্ন অথবা দ্রুতগতিতে এগোনোর চেষ্টা করা অস্বস্তির ও বেদনার কারণ হতে পারে ও উদরের ওপরচাপ এড়িয়ে চলা উচিত।

৫. মৌখিক যৌনতা ক্ষতিকর

এই কল্পনাও কিছুটা সত্য। যদি জোরপূর্বক এবং সরাসরি যোনির ভিতরে বাতাস প্রবেশ করে তবে যোনিতে বাতাসের বুদবুদ সৃষ্টি হতে পারে, যার ফলে গুরুতর সমস্যা বা রক্তপাত দেখা দেয়।

Leave a Reply

%d bloggers like this: