এই ছোট ছোট ঘরোয়া উপায়গুলি আপনাকে অনিদ্রা ও মানসিক চাপ থেকে মুক্তি দেবে

বর্তমানে অনিদ্রা ও মানসিক চাপ বেশিরভাগ মানুষকে ঘিরে ধরেছে। এই দুটি সমস্যাই একে ওপরের নির্ভরশীল। ছোট ছোট ঘরোয়া উপায় অবলম্বনে এই রক্ষা পেতে পারেন আপনারা।

বাগানের শখ অনেকেরই। যাঁদের বাড়তি জমির অভাব, অনেক সময়ে বাড়ির জানলায় বা ছাদে গাছ লাগান তাঁরা। রং-বেরংয়ের ফুল মন ভাল রাখার একটা কারণ তো বটেই। তবে জানেন কি, শুধু ফুল দিয়ে মনোরঞ্জনই নয়, কিছু গাছ আপনার অ্যালার্জি, অনিদ্রার মতো রোগগুলোকেও দূরে রাখে। সাম্প্রতিক এক গবেষণা জানাচ্ছে, শোওয়ার ঘরে যদি বিছানার পাশে এই গাছগুলো রাখেন, ফল পাবেন হাতেনাতে।

ল্যাভেন্ডার

ল্যাভেন্ডার শরীর রিল্যাক্স রাখতে সাহায্য করে। রক্তচাপ কমায় আর হার্ট রেট কমিয়ে দেয়। এছাড়াও শরীরে স্ট্রেস হরমোন কমাতেও সাহায্য করে। একই সঙ্গে রক্ত চলাচলেরও উন্নতি ঘটায়। এমনকী এ-ও দেখা গিয়েছে যে, এই গাছ বাচ্চাদের দ্রুত ঘুমিয়ে পড়তে সাহায্য করে।

জেসমিন

জেসমিন বা জুঁই ফুল ডিপ্রেশন কমায়‚ শরীরের ক্লান্তি দূর করে এবং উৎকণ্ঠা কমায়। এছাড়াও দেখা গিয়েছে, জুঁই ফুলের গন্ধে গভীর ঘুম আসে। তবে জুঁই ফুলের গাছ খুব দ্রুত বাড়ে তাই মাঝে মধ্যেই কিন্তু এই গাছ ছেঁটে দিতে হবে। একই সঙ্গে রোজ ২ থেকে ৩ ঘণ্টা রোদেও রাখতে হবে |

স্নেক প্ল্যান্ট

খুব সহজেই এই গাছ পাওয়া যায়। নাম শুনে অবশ্য ভয় পাওয়ার কিছু নেই। এই গাছ ঘরের মধ্যে ক্ষতিকারক টক্সিন তাড়াতে সাহায্য করে। এছাড়াও এই গাছ রাতের বেলা কার্বন ডাই অক্সাইড নেয় আর অক্সিজেন ছাড়ে। যারা অ্যালার্জিতে আক্রান্ত বা যাদের শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা রয়েছে, তাদের জন্য বিশেষ করে এই গাছ খুব ভাল।

রোজমেরি

বিভিন্ন খাবারের স্বাদ বাড়ানোর জন্য এই হার্বের ব্যবহার হয়। কিন্তু অনেকেই জানেন না, রোজমেরি আপনাকে ঘুমিয়ে পড়তেও সাহায্য করে। এছাড়াও দেখা গিয়েছে, রোজমেরি নার্ভাস সিস্টেম‚ হার্ট ভাল রাখতেও সাহায্য করে। এখানেই শেষ নয়‚ স্ট্রেস কমাতেও সাহায্য করে এই গাছ।

স্পাইডার প্ল্যান্ট

স্নেক প্ল্যান্টের মতই স্পাইডার প্ল্যান্ট ঘরের মধ্যে থেকে টক্সিন বের করে দেয়। এছাড়াও এই গাছ অপ্রীতিকর গন্ধ শুষে নিতে সাহায্য করে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: