মহিলাদের যেই ১০টি অধিকার অবশ্যই প্রাপ্য

ভারতবর্ষ এমন এক স্বাধীন দেশ যার সংবিধানে নারী ও পুরুষদের সমান অধিকার দেওয়া হয়েছে; বরং নারীদের উন্নতির জন্যে অনেক ক্ষেত্রেই বিশেষ সুবিধাও দেওয়া হয়েছে। কিন্তু প্রশ্ন হল এই যে আদেও কি মহিলারা এই সমস্ত অধিকার স্বাধীনভাবে ও সচেতন হয়ে গ্রহণ করতে পারছেন? হয়তো না। তার কারণ হল, হয় তারা নিজেদের অধিকার সম্পর্কে ওয়াকিবহাল নন, অথবা তারা বাধ্য। তবে আর দেরি নয়, এবার আসুন জেনে নেওয়া যাক কি কি অধিকার তাদের অবশ্যই প্রাপ্য!

১. পরিচয় গোপন রাখার অধিকার- ধর্ষণ বা শ্লীলতাহানির ক্ষেত্রে অভিযোগকারিণীর পরিচয় গোপন রাখা বাধ্যতামূলক। পুলিশ অথবা সংবাদমাধ্যম, নির্যাতিতার ছবি বা নাম প্রকাশ করলে তা হবে শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

২.বিনামূল্যে আইনি সহায়তা- ধর্ষণ বা শ্লীলতাহানির অভিযোগের ক্ষেত্রে যে কোনও মহিলা বিনামূল্যে আইনি সহায়তা পাবেন।

৩. সব কর্মরত মহিলা সবেতন মাতৃত্বকালীন ছুটির অধিকারিণী। কমপক্ষে ১২ সপ্তাহ ছুটি তাঁদের দিতেই হবে। সরকারি-বেসরকারি সব ক্ষেত্রেই এই ছুটির মেয়াদ বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে কেন্দ্র।

৪. মহিলা সাক্ষীদের থানায় ডাকা যায় না- কোনও মামলায় কোনও মহিলার সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য তাঁকে থানায় ডাকা যায় না। বাড়িতে বসেই সাক্ষ্য দিতে পারেন তিনি।

৫. সূর্যাস্তের পরে এবং সূর্যোদয়ের আগে কোনও মহিলাকে গ্রেফতার করা যায় না।

৬. পুরুষ এবং মহিলার মধ্যে বেতনে কোনও রকম বৈষম্য থাকা বেআইনি। মহিলা বলে কম বেতন দেওয়া যাবে না।

৭. পুরুষ-মহিলা মিলিয়ে ১০ জনের বেশি কর্মী আছেন, এমন যে কোনও সংস্থায় ‘‘সেক্সুয়াল হ্যারাসমেন্ট কমপ্লেন্টস কমিটি’’ গঠন করা বাধ্যতামূলক। এবং সেই কমিটির শীর্ষে থাকবেন একজন মহিলা।

৮. লিভ-ইন সম্পর্ক সম্পূর্ণ বৈধ এবং আইনি। লিভ-ইন করেন বলে কোনও মহিলাকে বাড়ি ভাড়া দেওয়া হবে না, এমন কোনও আইন নেই।

৯. কোনও মহিলা যদি স্রেফ ই-মেলের মাধ্যমে অভিযোগ জানান, তা হলে এফআইআর করার পক্ষে সেটিই যথেষ্ট।

১০. উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত সম্পত্তিতে পুরুষ এবং মহিলা, উভয়েরই সমান অধিকার।

Leave a Reply

%d bloggers like this: