গর্ভাবস্থায় বেড়াতে গেলে যেই ৬ টি জিনিস মাথায় রাখা দরকার

কাজের জন্য বাইরে যান বা শিশুর জন্মের আগে ঘুরতে, নিজের স্বাস্থ্য ও আরামের খেয়াল রাখা দরকার। তাই নিচের এই কতগুলি জিনিস মাথায় রাখবেন:

১. জায়গা ঠিক করা

এমন জায়গা দেখবেন যাতে লম্বা ফ্লাইট জার্নি না করতে হয়। ২-৩ ঘন্টার ফ্লাইট হলে সব থেকে ভালো। এমন জায়গায় যাবেন যেখানে কাছে পাশে হাসপাতাল ও ভালো দোকান থাকে। যদি যাওয়ার আগে ভ্যাকসিন নিতে হয় তো না যাওয়াই ভালো। উচু জায়গায় যাবেন না, স্কি বা স্কাইডাইভ করবেন না. হাটুন বা যোগ ব্যায়াম করুন।

২. আগে থেকে পরিকল্পনা করবেন

কি কি নেবেন তার ফর্দ করে নিন। এই সময় ক্লান্তি ও গা গোলানো খুব স্বাভাবিক। তাই দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে যাওয়া ভালো। ক্লান্তি কম থাকে ও বোমি ভাবটি কমে আসেদ। ৩৬ সপ্তাহের পর না যাওয়াই ভালো। প্লেনে আইল সীট নেবেন ও বালিশ সাথে নিয়ে যাবেন.

৩.চিকিত্সার রিপোর্ট নিয়ে যাবেন

আগে থেকে দেখে নেবেন হোটেলের কাছে কি হাসপাতাল আছে ও সব রিপোর্ট নিয়ে যাবেন। যদি চিকিত্সা দরকার হয় তো সেটি দেখেই সেখানের ডাক্তার আপনার সমস্যা বুঝে যাবেন। ইন্সুরেন্স এর কাগজ নিয়ে যাবেন অবশ্যই।

৪. খাওয়া দাওয়া

৮-১২ গ্লাস জল খাবেন যাতে ডিহাইদ্রেশান না হয়। যত পারবেন ফল ও সবজি খাবেন যাতে কন্স্তিপেসন না হয়। এমন ফল খাবেন না যা নিজে ছুলতে না পারেন ও নোনতা খাবার খাবেন না। ড্রাই ফ্রুট, সিরিল ও ওটমিল বিস্কিট খেতে পারেন।

৫. প্যাকিং

ঠিক করে জামা ও জুতো নেবেন যাতে আরামে থাকতে পারেন। হাটার জুতো নেবেন ও ব্লিস্টার প্যাড নেবেন পায়ে দেওয়ার জন্য। বেশি দিনের হলে এমন জামা নিন যাতে কোমরের মাপ বাড়লেও পরা যায়। ঠান্ডা ও গরমের জন্য মিলিয়ে জামা নিন।

৬. ক্ষেপে ক্ষেপে ঘুরুন

আরাম করতে পারলেই মজা আসবে। বার বার থামুন, বসুন ও পা তুলে আরাম করুন। একটু ব্যায়াম করে নিন যাতে হাত পা ফুলে না যায়। উঠে হেটেও আসতে পারেন। কম্প্রেসন স্তচ্কিং পরলেও আরাম পাবেন। পিঠে ব্যথা করলে পিঠে বালিশ দিয়ে বসুন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: