কালীপুজোর আগে এই জিনিসগুলি হলে শুভ মানা হয়

হাজার হাজার বছরের পুরনো ভারতীয় সভ্যতায় দীপাবলিকে ঘিরে কিছু সংস্কার বর্তমান, যার কেন্দ্রে রয়েছে ভাগ্য পরিবর্তন সংক্রান্ত কিছু ইঙ্গিত।

আলোকোৎসব দীপাবলিকে ভারতবর্ষে সৌভাগ্য আহ্বানের উৎসব বলেই মনে করা হয়। আমাদের বাংলাতেই এই দিন দীপান্বিতা লক্ষ্মী পূজার ঐতিহ্য অতি প্রাচীন। আঞ্চলিক বিশেবাস মতে এদিন আলোকবর্তিকা দিয়ে অলক্ষ্মীকে বিদায় জানানো হয় এবং লক্ষ্মীদেবীকে স্বাগত জানানো হয়। হাজার হাজার বছরের পুরনো ভারতীয় সভ্যতায় দীপাবলিকে ঘিরে কিছু সংস্কার বর্তমান, যার কেন্দ্রে রয়েছে ভাগ্য পরিবর্তন সংক্রান্ত কিছু ইঙ্গিত। সনাতন ভারতীয় পরম্পরায় মনে করা হয়, কিছু লক্ষণ এই সময় প্রত্যক্ষ করলে অর্থভাগ্যে পরিবর্তন ঘটতে পারে। সেই লক্ষণগুলির মধ্যে পাঁচটি রইল আপনার জন্য।

• এই সময়ে যদি গিরগিটি বা বহুরূপী প্রত্যক্ষ করেন, তা হলে ধরতে হবে, লক্ষীদেবী আপনার উপরে প্রসন্না। কারণ এই সরিসৃপটি অতি প্রাচীন সৌভাগ্য-প্রতীক।

• দীপাবলির সময়ে বা তার অব্যবহিত আগে-পরে পেঁচা দেখা অত্যন্ত শুভ। বিশেষ করে যদি তা লক্ষ্মী পেঁচা হয়, তা হলে তো কথাই নেই। স্বয়ং লক্ষীর বাহন আপনার আসন্ন সৌভাগ্যের সূচক হতে পারে।

• এই সময়ে যদি আপনি ইঁদুর প্রত্যক্ষ করেন, তো জানবেন অবিশ্বাস্য ধনলাভ আপনার ভাগ্যে রয়েছে।

• দীপাবলীর রাতে ছুঁচো দেখা অতি শুভ লক্ষণ বলে বিবেচিত ভারতীয় পরম্পরায়।

• সনাতন ধর্ম বিশ্বাস অনুযায়ী, গো-দর্শন সর্বদাই শুভ। কিন্তু দীপাবলীর কালে গরু দেখলে তা নিশ্চিতভাবে অর্থভাগ্যের ইতিবাচক পরিবর্তনের ইঙ্গিত বলে ধেরে নিতে হবে বলে জানায় পরম্পরা।

এই প্রাণীগুলি দীর্ঘকাল ধরে সৌভাগ্যের প্রতীক হিসেবে বিবেচিত। এদের নিয়ে এই সংস্কারের কোনও বিজ্ঞানসম্মত ভিত্তি নেই। থাকার কথাও নয়। এখানে এই সংস্কার প্রসঙ্গে এনে দেশজ পরম্পরাকে স্মরণ করা হল মাত্র।

Leave a Reply

%d bloggers like this: