গরমে নিজেকে তরতাজা রাখার উপায়

গরম কালে সবাই একধিক বার স্নান করে, কিন্তু গায়ে সাবান মেখে ধুলে শরীর পরিষ্কার হয় না। বিশেষ করে গরমকালে গোপনাঙ্গে ঘাম জমে শরীর নোংরা হয় বেশি। এই সময়ে সবথেকে বেশি মেয়েদের বিশেষ যত্ন নেওয়া উচিত শরীরের প্রতি। শরীর যত পরিচ্ছন্ন থাকবে, ততই ব্যাকটেরিয়াজনিত রোগব্যাধি থেকে দূরে থাকা যাবে।


কিন্তু কি ভাবে এই গরমে মহিলারা নিজেদের পরিচ্ছন্ন রাখবেন


১. দুই বেলা স্নান করা জরুরি এবং গোটা শরীরই সাবান অথবা বডিওয়াশ দিয়ে ভাল করে ধুতে হবে।


২. গরমে মাথার চুলে ঘাম বসে। অনেকে রোজ চুল ভিজিয়ে চান করেন না। তাঁরা একদিন ছাড়া শ্যাম্পু অবশ্যই করবেন।


৩. যৌনকেশের গোড়ায় ঘাম বসে খুব বেশি। ঠিক তেমনই বগলের নিচে চুল থাকলেও সেখানে অতিরিক্ত ঘামের ফলে র‌্যাশ হতে পারে। তাই গরমকালে আন্ডারআর্মস কেশমুক্ত রাখুন।

৪. যৌনকেশ অবশ্যই ট্রিম করবেন যতটা পারা যায়। ভালভার উপরের অংশের যৌনকেশ সম্পূর্ণ নির্মূল করতে পারেন রিমুভার ব্যবহার করে।


৫. সপ্তাহে একদিন অবশ্যই স্ক্রাবিং করবেন সারা গায়ে। বিশেষ করে আন্ডারআর্মস, কনুই, হাতের ভাঁজ, হাঁটুর ভাঁজ, ঘাড়, কানের পিছন, নিতম্ব, যোনি ও উরুর সংযোগস্থলে ইত্যাদি অংশে ময়লা জমে সবচেয়ে বেশি।


৬. সারাদিন ব্রা পরে থাকলে স্তনের ঠিক নীচে গরমে র‌্যাশ হতে পারে, ময়লাও জমতে পারে। তাই প্রতিদিন অল্প একটু স্ক্রাবার নিয়ে স্তনের নীচে রাব করুন স্নানের সময়।


৭. গরমের সময়ে শুধু নয়, সারা বছরই যোনি ধোওয়ার সময়ে ভিতরের অংশটি পরিষ্কার করা উচিত। সরাসরি এই অংশে সাবান দেবেন না।

৮. দিনে দুই বার অন্তর্বাস এবং পোশাক পালটানো খুব গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রত্যেকবার জামাকাপড় ছাড়ার আগে অবশ্যই ভাল করে স্নান করবেন।


৯. গরমে নিতম্বের ভাঁজের ভিতরে ঘাম জমতে থাকে। তাই স্নান করার সময়ে ওই অংশটিও ভাল করে পরিষ্কার করা প্রয়োজন।


১০. যোনি ও পায়ুছিদ্রের মধ্যবর্তী অংশটি হল পেরিনিয়াম। গরমে তো বটেই, সারা বছরই এই অংশটি পরিষ্কার রাখুন। এইখান থেকেই ব্যাকটেরিয়া যোনিতে ছড়াতে পারে। তাই প্রতিদিন পরিষ্কার রাখুন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: