হানিমুনে গিয়ে এই জিনিসগুলি করতে একদম ভুলবেন না

হানিমুন বিবাহিত জীবনের এক শ্রেষ্ঠ মুহূর্ত ও অভজ্ঞতা। প্রত্যেক দম্পতির স্বপ্ন থাকে এই সময়টিকে যতটা সম্ভব রঙিন ও স্বপ্নময় করে তোলার। কোথায় ঘুরতে যাবেন সেটা সম্পূর্ণভাবে আপনাদের ব্যক্তিগত হলেও, কিছু জিনিস আছে যা না করলে হানিমুন তার চরম পর্যায় পৌঁছতে পারে। জানুন কি কি!

১. বেড়াতে যাওয়ার জায়গাটা নির্বাচন করুন দু’জনে একসঙ্গে মিলে। এমন জায়গায় যান, যেখানে দু’জনেই চুটিয়ে এনজয় করতে পারবেন।

২. সঙ্গীর জন্যে কিছু চমক দেওয়ার বন্দোবস্ত রাখুন। তাঁর পছন্দের চকোলেট রেখে আসুন তাঁর বিছানায়, বা আগে থেকে কিছু না জানিয়ে নিয়ে যান ক্যান্ডেললাইট ডিনারে।

৩. নিজের ব্যাগ আর সুটকেস গোছান সঙ্গীকে জানতে না দিয়ে। তাহলে আপনার পোশাক আর লঁজরির ক্ষেত্রেও কিছু চমক থাকবে আপনার জীবনসঙ্গীর জন্য।

৪. হানিমুনে যাওয়ার ব্যাপারটা জানান সবাইকে। ঢাক পেটানোর দরকার নেই। কিন্তু আলাদা করে গোপন করারই বা প্রয়োজন কী? কেউ জিজ্ঞাসা করলে নির্দ্বিধায় বলুন, হানিমুনে এসেছেন।

৫. হানিমুনে শারীরিক ভালবাসা তো থাকবেই, কিন্তু তার জন্য তাড়াহুড়ো করবেন না। বিষয়টিকে সহজভাবে নিন। দেখবেন, তাতে গোটা বিষয়টি আরও রোমান্টিক হয়ে উঠবে।

৬.হানিমুনে ল্যাপটপ নিয়ে যাবেন না। মোবাইল বা ট্যাবের মতো যন্ত্রগুলিকেও, খুব প্রয়োজন না হলে, অফ রাখুন। সময় কাটান কেবল আপনারা দু’জন, একান্তে, নিভৃতে।

৭. হানিমুনের প্রথম দিনটা কাটান হোটেলের ঘরে। বিশ্রাম নিন, ভালবাসুন একে অন্যকে। দেখবেন, তাতে পথশ্রম যেমন কেটে যাবে, দু’জনের একসঙ্গে থাকাটাও অনেক সহজ হয়ে আসবে।

৮. কোথায় কোথায় ঘু‌রতে যাবেন তার কোনও তালিকা বানাবেন‌ না। নিজেদের ছন্দে ঘুরুন, এলোমেলো পায়চারি করুন রাস্তায়— দু’জনে পাশাপাশি, হাতে হাত।

৯. প্রচুর ছবি তুলুন। হানিমুনটাকে স্মরণীয় করে রাখার এর চেয়ে ভাল উপায় আর আছে নাকি।

১০. হোটেলের বন্দোবস্ত যেমনই হোক, বিছানা তোলা বা ব্রেকফাস্ট তৈরির মতো কাজগুলো দু’জনে একসঙ্গে করার চেষ্টা করুন। এত রোম্যান্সের মাত্রা আরও বাড়বে।

১১. হানিমুনে গিয়ে একেবারে নতুন কিছু করুন, সে হতে পারে বাঞ্জি জাম্পিং কিংবা স্কুবা ডাইভিং। আর সেই কাজটি দু’জনে একসঙ্গে করবেন, তা কি বলার অপেক্ষা রাখে!

১২. প্রত্যেকদিন নিজের কোনও একটি গোপন কথা জানান নিজের একে অন্যকে। এটাই হয়ে উঠুক সম্পর্কটিকে স্বচ্ছ করে তোলার প্রথম ধাপ।

১৩. দু’জনে একসঙ্গে সূর্যোদয় দেখুন। শেষ কবে সূর্য ওঠা দেখেছিলেন বলুন তো? সেই কাজটি হানিমুনে গিয়ে করুন, এবং এবার একসঙ্গে দেখুন সূর্যোদয়ের শোভা।  

Leave a Reply

%d bloggers like this: