শিশু কি চিপস, কুরকুরে, পপ কর্ন জাতীয় খাদ্য খুব পছন্দ করে?

শিশুরা স্বাভাবিকভাবেই ঘরোয়া বা পুষ্টিকর খাদ্যের তুলনায় চটপটা নোনতা ঝাল ভরা প্যাকেটের খাদ্যে বেশি আগ্রহী হয় এবং সারাদিনের ক্লান্তির পর বা শিশুকে মন ভোলানোর জন্যে আপনিও অনেক সময় এগুলি তাদের দিয়ে ভালো থাকতে চান। এই খাবারগুলো দেখতে অতটা বিপজ্জনক নয়। কিন্তু ছোট এক প্যাকেট চিপস বা দুটি ছোট বিস্কিট আপনার শিশুর অনেক ক্ষতি করছে।

এরা দেখতে যতটা নিষ্পাপ বাস্তবে ঠিক তার কয়েকগুন বেশি ক্ষতিকর। আসুন জেনে নেওয়া যাক এমন দশটি খাবার সম্পর্কে যেগুলো আপনার স্বাস্থ্যকে ধ্বংস করে চলেছে…

১. বিস্কিট

ছোট এক প্যাকেট বিস্কিটও অনেক বড় ক্ষতি করতে পারে। বিস্কিট বানানো হয় মূলত পরিশোধিত ময়দা থেকে। যাতে থাকে প্রচুর পরিমাণে চিনি এবং হাইড্রোজেনেটেড তেল। এগুলো শুধু শিশুদের দেহের ভেতরে শুন্য ক্যালোরি পাম্প করে।

২. প্যাকেটজাত জুস

দুঃখজনক সত্যটি হলো প্যাকেটজাত জুসে সত্যিকার কোনো ফলের রস থাকে না, কম্পানিগুলো যাই দাবি করুক না কেন। এসব মূলত ক্ষতিকর সুগারে পূর্ণ এবং এর কোনো পুষ্টিগত উপকারিতা নেই। সুতরাং কমলা জুস না খেয়ে বরং একটি কমলা কিনে শিশুকে রস করে খাওয়ান। এছাড়া প্যাকেট জুসে থাকে প্রিজারভেটিভ যা দেহে পুষ্টি শোষণ প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করে।

৩. চানাচুর

এতে থাকে প্রচুর মশলা, প্রিজারভেটিভ, হাইড্রোজেনেটেড তেল এবং সোডিয়াম। ফলে নিয়মিতভাবে চানাচুর খেলে তা স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

৪. পটেটো চিপস

চিপসে থাকে প্রচুর পরিমাণ ক্যালোরি কারণ তাদেরকে চর্বিতে ভাজা হয়। চিপসে আছে প্রচুর সোডিয়ামও যা শিশুর মধ্যে রক্তের চলাচলে ব্যাঘাত ঘটায়, এবং দেহে জলের চাপ বাড়ায়। ১০০ গ্রামের এক প্যাকেট চিপসে আছে ৫৫০-৬০০ ক্যালোরি। আর তাছাড়া একই তেলে বারবার চিপস ভাজার কারণেও তা অস্বাস্থ্যকর হয়।

৫. নুডলস

এটি হল শিশুদের সবচেয়ে পছন্দের জিনিস। নুডলসও তৈরি হয় পরিশোধিত ময়দা থেকে যা শিশুর হজম প্রক্রিয়ায় সমস্যা তৈরি করে কারণ প্রক্রিয়াজাত নুডলস হজমের জন্য ভাঙ্গতে অনেক বেশি সময় লাগে। এগুলো রক্তে সুগারের মাত্রায় হেরফের ঘটায় যার ফলে হতে পারে বেবি সুগার। আর দীর্ঘক্ষণ হজমপ্রক্রিয়ায় অবস্থান করে ক্ষতিকর রাসায়নিক এবং প্রিজারভেটিভের নিঃসরণ ঘটিয়ে দীর্ঘমেয়াদি ক্ষতি করে।

৬. বায়বীয় পানীয়

এগুলো যে ক্ষতিকর তা আমদের সকলেরই জানা। এমনকি ক্যালোরিহীন পানীয়ও ক্ষতিকর। কারণ এদের বেশিরভাগেই থাকে কৃত্রিম মিষ্টি যা দীর্ঘমেয়াদে দেহের ক্ষতি করে।

৭. প্যাকেটজাত স্যুপ

এতে হাউড্রোলাইজড ভেজিটেবল প্রোটিন, এসিডিটি নিয়ন্ত্রক, স্বাদ বর্ধক এবং কৃত্রিম রঙ ব্যবহার করা হয়। কৃত্রিম রঙ শিশুর শরীরের জন্য বিষাক্ত উপাদান এবং কিডনি ও লিভারের মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে কারণ এর ফলে কিডনি ও লিভার হজম প্রক্রিয়াকে ক্ষতিকর রাসায়নিক থেকে মুক্ত করার জন্য অতিরিক্ত কাজ করতে হয়। আর হাইড্রোলাইজড ভেজিটেবলে ৩০% পর্যন্ত এমএসজি থাকে যা হার্টবিট বাড়ানো এবং শিশুর বুকের ব্যাথার কারণ হতে পারে।

৮. রেডিমেড খাবার

এতেও থাকে হাইড্রেটেড ভেজিটেবল, যাতে পুষ্টি উপাদান খুবই কম থাকে। এছাড়া দীর্ঘ সময় ধরে সংরক্ষেণের জন্য এতে যে প্রিজারভেটিভ, স্বাদবর্ধক বা নানা রাসায়নিক যুক্ত করা হয় যা শিশুর কিডনি এবং লিভারের মারাত্মক সব ক্ষতি করতে পারে।

৯. মুয়েসলি

প্যাকেটজাত মুয়েসলির বেশিরভাগ প্যাকেটেই সয় লেসিথিন থাকে যা সয়াবিন তেলের একটি বাই প্রডাক্ট। গবেষনায় দেখা গেছে, নিয়মিতিভাবে সয় লেসিথিন খেলে শিশুরক্ষুধামান্দ্য, মাঝে মাঝে বমিভাব, ঝিমুনি, বমি করা এবং মানসিক বিশৃঙ্খলা দেখা দিতে পারে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: