শিশু বিকাশ – তিনটি গুরুত্বপূর্ণ খেলনা যা শিশুর বুদ্ধি বৃত্তি বিকাশের সহায়ক হবে

 

ছোট্ট শিশু থেকে একটু বড় হওয়া (হামাগুড়ি দেওয়ার পর্যায়ে আছে এমন) বাচ্চারা দিনের বেশীরভাগ সময়ই খেলে কাটায়, কিন্তু এই সময়টাও তাদের জন্য খুব মূল্যবান কেননা এই সময়ই তারা সবথেকে ভাল শেখে। প্রথম বছরে বৌদ্ধিক দক্ষতার বিকাশ ঘটানোর জন্য ৪টি মুখ্য অনুসঙ্গ প্রদান করা জরুরী.

১। স্মরণ শক্তি 

বাচ্চার কান্না থেমে যেতে পারে যখন তাদের পরিচর বা তার মা তার প্রতি মন দেন কেননা তারা বুঝতে পারে যে তাদের সান্ত্বনা দেওয়া হচ্ছে।

২। সংসর্গ 

শিশু বুঝে যায় যে তাকে খাওয়ালে সে বেশ ভাল থাকে।

৩। কার্য এবং কারণ 

শিশু শিখে যায় যে কোন জিনিসকে ছেড়ে দিলে সেটা পড়ে যায়।

৪। মনযোগের সময়সীমা 

শিশু অভ্যস্ত কোন জিনিসের থেকে কোন নতুন জিনিস নিয়ে বেশীক্ষণ খেলতে ভালবাসে।

 

শিশুরা বড় হতে হতে বিভিন্ন রকম খেলনা ব্যবহার করতে শিখে যায়, যা সময়ের সাথে সাথে তাদের ছোট্ট মস্তিস্ক বিকাশের সহায়ক হয়ে ওঠে। যে খেলনাগুলি শিশুদের মনে জ্ঞান/বুদ্ধিবৃত্তিক দক্ষতার আলো জ্বালিয়ে দিয়ে যায় তাদের প্রথম তিনটি হল –

১। ব্লক সাজানো বা ব্লক নিয়ে খেলা 

ব্লকের খেলা বৌদ্ধিক, শারীরিক, সামাজিক এবং ভাষিক, ইত্যাদি বিকাশের প্রতি পর্যায়ে শেখার আগ্রহকে বাড়িয়ে দেয়। হামাগুড়ি দিতে জানে এমন বাচ্চাদের হাতে যখন প্রথম ব্লক তুলে দেওয়া হয় তখন হয়ত তারা শিখে নেয় কিভাবে সেগুলিকে ধরতে হবে, তাদের স্পর্শ কেমন এবং ব্লকগুলি কত ভারী। তারা এদের উজ্জ্বল রং দেখতে শেখে এবং এগুলি সঙ্গে নিয়ে ঘুরে বেড়াতে শুরু করে। সামাজিকভাবে ব্লকের খেলা তাদের বিকাশ এবং আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধিতেও সাহায্য করে।

২। ধাঁধা নির্মাণ 

যখন কোন শিশু তার পারিপার্শ্বিক জগতের সঙ্গে সংযোগ করে বা ঘটমান কাজ কর্মে অংশগ্রহণ করে, তখন তার মস্তিস্কের বিকাশের উপর গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব পড়ে। ধাঁধা নির্মাণ এই যোগ্যতাকে বাড়িয়ে দেয়। এর খুব উপকারী প্রভাব আছে, বিশেষতঃ হাত ও চোখের সংযোগ, সুক্ষ সঞ্চালন দক্ষতা, সমস্যা সমাধান স্মৃতি এবং আকৃতি জ্ঞান বৃদ্ধির জন্য।

৩। কাজ বিষয়ক কার্ড বা ফ্লাশ কার্ড 

কাজ বিষয়ক কার্ডগুলি ঘরের ব্যবহৃত সাধারন উপকরনগুলির মাধ্যমে জ্ঞানার্জন দক্ষতা, সঞ্চালন দক্ষতা, ভাষা সংক্রান্ত দক্ষতা, আত্মবিশ্বাস ও ইন্দ্রীয় ব্যবহারের দক্ষতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। এগুলি শিশুদের মানসিক দক্ষতা জাগিয়ে তোলার কাজেও সহায়তা করে।

 যখন হাত ব্যবহারের কৌশল রপ্ত হয়ে যায়, শিশুদের আগ্রহ জন্মায় সাধারন আকৃতি নির্মানে এবং অন্যান্য ধাঁধাতে। তারা আরও জটিল সৃজনশীল কাজকর্ম করতে সক্ষম হয়ে ওঠে, এবং এমন কাজ পছন্দ করতে আরম্ভ করে যেখানে কিছু সাধারন কাটাকাটি বা সেলাই করার কাজ আছে। কৃত্রিম মন্ড থেকে বিভিন্ন বস্তু নির্মাণ করার খেলাও শিশুদের দেওয়া যেতে পারে, তাদের হাতের নড়াচড়া এবং পারস্পরিক সংযোগ বাড়ানোর জন্য। শিশুকে যে কোন খেলা দেওয়ার আগে বা সেই খেলাতে শিশুকে আগ্রহী করে তোলার আগে অবশ্যই শিশুর নিরাপত্তা জনিত সমস্ত ব্যবস্থা নিশ্চিত করা প্রয়োজন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: