প্রসব যন্ত্রনা উঠছে বুঝতে পারলে কিভাবে তা কমাবেন?

পেটের আকার, ফোলা পা, মাথা ব্যথা ও বমি করা- এই সব কিছুর মধ্যে সব হবু মায়েদের মনে হয় যে কেউ পাশে থাকলে ভালো হত, কেউ পরামর্শ দিলে ভালো হত।

আপনি হয়ত অনেক চেষ্টা করেছেন খোজার কি করে ত্বকের চুলকানি কমাবেন বা পেটে প্রসারিত চিহ্নের দাগ সরাবেন. ব্যাপারটা হলো, সব সমস্যার সমাধান দোকানে কেনা পন্যে থাকে না, কিছু এমনিতেই বের করা যায়:

১. পায়ে ব্যথা

ওজন রাড়লে পায়ে চাপ বাড়ে এবং তাই পা ফুলে যায় বা ভেরিকোস ভেইনস হয়। কেউ পায়ে ম্যাসেজ করে দিলে কি আরাম হয়ে না? ভিটামিন ই, অলিভ অয়েল, পেপারমিন্ট অয়েল এবং শিয়া বাটার দিয়ে ম্যাসেজ করতে পারেন বা পা গরম জলে দিয়ে রাখতে পারেন. পায়ের ব্যায়াম করুন ও ভিটামিন সি ও ই যুক্ত খাবার খান. জল ও ফল খেলে শরীরের জল রক্ষা করতে পারবেন। ডি মম কো এর ন্যাচারাল ফুট ক্রীম ব্যবহার করুন.

২. অদ্ভূত গন্ধ, সকালের গা গলানো ও আপনার ক্লান্ত শরীর

নারকেল তেল দিয়ে গা ধোবেন, এত আরাম হবে যে গর্ভাবস্থার পরও আপনি এটি ব্যবহার করবেন। কিছুটা জিনজার এস্সেন্শিয়াল অয়েল চান করার সময় দিয়ে দিলে গা গলানো কমে যাবে। একিউপ্রেসার নিন বা হাটুন. আলাদা ধরনের জিনিস খেয়ে দেখুন কি খেলে আপনার ভালো লাগে। মম কেয়ার জিনজার বডি ওয়াস ও কোকোনাট ক্লেন্সার ব্যবহার করুন.

৩. ত্বকের চুলকানি ও স্ট্রেচ মার্ক

পেটের আকার বাড়লে সেটা বাইরে দেখা দেয় ও তার সঙ্গে চুলকানি বাড়ে।

পেট চুলকালে নারকেল তেল ও ভিটামিন ই দিয়ে মালিস করবেন। সি বাক্থর্ন অয়েল ও রোসহিপ অয়েল ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা রক্ষা করে ও ত্বকের ভেতরে গিয়ে ত্বককে পুষ্টি দেয়। ডি মম কেয়ার ন্যাচারাল বডি বাটার ব্যবহার করুন যাতে সি বাক্থর্ন অয়েল , রোসহিপ অয়েল কোকো বাটার, ওমেগা ৩,৬,৯ ও ভিটামিন এ,ই,সি আছে। এটিকে দিনে দুবার কোমরে, স্তনে, পেটে ও পায়ে লাগান. প্রসবের ৩ মাস পর পর্যন্ত লাগান। বেশি তেলতেলে না চাইলে ন্যাচারাল স্ট্রেচ অয়েল দিন। সি বাক্থর্ন অয়েল ,রোসহিপ অয়েল, ভিটামিন ই, নারকেল ও ভিটামিন ই আছে.

গর্ভাবস্থার সব সমস্যা মেটানো যায় না কিন্তু ভালো পরামর্শ পেলে তা কমানো যায়। তাই ব্যবহার করুন ডি মম ক এর কমপ্লিট মম টু বি কেয়ার কিট যাতে আছে- ন্যাচারাল বডি বাটার, ন্যাচারাল স্ট্রেচ অয়েল, ন্যাচারাল বডি বাস ও ন্যাচারাল ফুট ক্রীম।

Leave a Reply

%d bloggers like this: