যেই খাদ্যগুলি শিশুকে কখনোই পর পর খাওয়াবেন না, হতে পারে মারাত্মক বিপদ!

শিশুকে শুধু ভাল মন্দ খাওয়ালেই হয় না, তা হজম করার শক্তিও চাই। আর হজম করতে গেলে জানতে হবে কোনটা খাওয়াবেন আর কোনটা খাওয়াবেন না। আবার কোনটার সঙ্গে কোনটা খাওয়াবেন না। আমাদের আজকের এই পোস্ট থেকে জেনে নিস সেই সম্পর্কে।

১। দুধ-কলা দিয়ে কখনও শিশুর পেটের কালসাপ পুষবেন না। কারণ দু’টি খাবারেই খুব হাই প্রোটিন থাকে যা পেট ভারী করে দেয়। আর তাদের শরীর খুব অল্প সময়েই ক্লান্ত হয়ে যায়।

২। শিশুকে প্রতিদিন একটি আপেল খাওয়ালে ডাক্তারের প্রয়োজন কমিয়ে দেয়। একথা যেমন ঠিক, তেমনই ঠিক আরও একটি কথা যে, আপেলের সঙ্গে কখনও অ্যালার্জির ওষুধ খাওয়াবেন না। এতে ওষুধের গুণ প্রায় ৭০ শতাংশ কমে যায়।

৩। আধুনিকতার ছোঁয়ায় বার্গার-ফ্রাইয়ের কম্বো খায়না এমন কাউকে পাওয়া দুষ্কর। কিন্তু জানেন কি, এই দুই ফ্যাট জাতীয় খাবার একসঙ্গে শরীরে প্রবেশ করলে রক্তে শর্করার পরিমাণ কমে যায়। তাতে শিশুরা সবসময় ক্লান্ত অনুভব করবেন।

৪। ধোঁয়া ওঠা গরম পিজ্জা, সঙ্গে কোল্ড ড্রিঙ্ক। এমন ‘পাপ’ শিশুরা এটা বড় হলে জীবনে কমবেশি সকলেই করে থাকে। কিন্তু এতেই বাড়ে বিপত্তি। প্রোটিনের সঙ্গে স্টার্চ মিলে মিশে হজমের শক্তি কমিয়ে দেয়। অল্প সময়েই পেট ভারী হয়ে যায় তাদের।

৫। পাস্তার সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত টমেটো। এই কম্বোই আপনার শিশুর পেটের ভিলেন। পাস্তার মতো কার্বোহাইড্রেট যুক্ত খাবারের সঙ্গে টমেটোর অ্যাসিড মিশে গ্যাসের সৃষ্টি করে।

৬। শিশুদের স্বাস্থ্যের কথা ভেবে অনেকেই তাদের দই ও ফল খাওয়ান। কিন্তু এই দুই স্বাস্থ্যকর খাবারই একসঙ্গে খাওয়া উচিত নয়। প্রোটিনের সংস্পর্শে অ্যাসিড আসলে টক্সিন সৃষ্টি হয়। আর শিশুদের কোল্ড অ্যালার্জি দেখা দিতে পারে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: