ভারতবর্ষের দিকে দিকে পালিত হোক শিশু দিবস, এই জন্মভূমি হয়ে উঠুক শিশুদের আলোয়ে প্রস্ফুটিত

শিশু দিবস পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন সময় পালিত হয়ে থাকে, বিশ্বব্যাপী শিশুদের সম্মান করতে। শিশু দিবসটি প্রথমবার তুরস্কে পালিত হয়েছিল সাল ১৯২০র এপ্রিল ২৩ তারিখে। বিশ্ব শিশু দিবস নভেম্বর ২০শে উদযাপন করা হয়, এবং আন্তর্জাতিক শিশু দিবস জুন ১ তারিখে উদযাপন করা হয়। তবে বিভিন্ন দেশে নিজেস্ব নির্দিষ্ট দিন আছে শিশু দিবসটিকে উদযাপন করার।

প্রথা অনুযায়ী ভারতবর্ষের শিশু দিবস ১৪ই নভেম্বর তারিখে উদযাপিত হয়ে থাকে। এ বছর এই দিনটি মঙ্গলবার অর্থাৎ আজকের দিনে পালন করা হচ্ছে। তবে কেন পালিত হয় আজকের দিনে শিশু দিবস?

পণ্ডিত জওহরলাল নেহরু (১৪ই নভেম্বর, ১৮৮৯—২৭শে মে, ১৯৬৪) ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের রাজনীতিবিদ, ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের অন্যতম প্রধান নেতা এবং স্বাধীন ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী। দূরদৃষ্টিসম্পন্ন, আদর্শবাদী, পণ্ডিত এবং কূটনীতিবিদ নেহরু ছিলেন এক জন আন্তর্জাতিক ভাবে খ্যাতিসম্পন্ন ব্যক্তিত্ব। লেখক হিসেবেও নেহরু ছিলেন বিশিষ্ট। ইংরাজিতে লেখা তাঁর তিনটি বিখ্যাত বই- ‘একটি আত্মজীবনী’ (অ্যান অটোবায়োগ্রাফি),’বিশ্ব ইতিহাসের কিছু চিত্র’ (গ্লিম্পসেস অফ ওয়ার্ল্ড হিস্টরি), এবং ‘ভারত আবিষ্কার’ (দ্য ডিসকভারি অফ ইন্ডিয়া) চিরায়ত সাহিত্যের মর্যাদা লাভ করেছে। তাঁর পিতা মতিলাল নেহরু এক জন ধনী ব্রিটিশ ভারতের নামজাদা ব্যারিস্টার ও রাজনীতিবিদ ছিলেন। মহাত্মা গান্ধীর তত্ত্বাবধানে নেহরু ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের অন্যতম প্রধান নেতা হিসেবে আবির্ভূত হন। ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তিনি ১৯৪৭ সালের ১৫ আগস্ট স্বাধীন ভারতের পতাকা উত্তোলন করেন। পরবর্তীকালে তাঁর মেয়ে ইন্দিরা গান্ধী ও দৌহিত্র রাজীব গান্ধী ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। তাঁর শাসন কালে একটি ভারত-পাকিস্তান ও একটি ভারত-চিন যুদ্ধ সংঘটিত হয়। ভারত-পাকিস্তানের শান্তিপূর্ণ সম্পর্ক স্থাপনের উদ্দেশ্যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নেহরু ও পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী লিয়াকত আলি খান নেহরু-লিয়াকত চুক্তি করেন। ২৭ মে, ১৯৬৪ পর্যন্ত তিনি ভারতে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।

ব্যক্তিজীবনে রুচিবান পুরুষ হিসেবে পরিচিত ছিলেন জওহরলাল নেহরু। তাঁর পরিধেয় বহুল ব্যবহৃত প্রিয় কোটটি নেহরু কোট নামে পরিচিত। নেহরু ফ্যাশনের সব চেয়ে চমকপ্রদ অধ্যায়টি হচ্ছে যে-কোনও রাজনৈতিক বা সামাজিক আচার-অনুষ্ঠানে স্বতন্ত্রধর্মী এই কোটটি পরতেন তিনি। জওহরলাল নেহরু ছোটদের সঙ্গে সময় কাটাতে ভালোবাসতেন। ছোটদের মধ্যে তিনি অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিলেন। চাচা নেহরু নামে তাঁর খ্যাতি ছিল। তাঁর চরিত্রের এই বিশেষ দিকটিকে মনে রেখে তাঁর জন্মদিনটি ভারতে শিশু দিবস হিসেবে পালিত হয়।

প্রতুল মুখোপাধ্যায়ের একটি গানের কয়েকটা লাইন দিয়ে আলোচনা শেষ করি, ‘ শিশু মেলা, শিশু দিন, শিশু বৎসর/ কত মধু মাখা দুই ছাপা অক্ষর/ আলো ঝলমল সভা ভাবের জোয়ার/তবু ভবিষ্যতেরা খাটে ভুতের বেগার’।

এই মহান ব্যক্তিত্ব আজ আমাদের মাঝে হয়তো অনুপস্থিত কিন্তু ওনার আদর্শ ও শিশুদের প্রতি অগাদ ভালোবাসা যুগ যুগ ধরে শিশু দিবস রূপে পালিত হয়ে আসছে এবং হয়ে যাবে। টাইনিস্টেপ পরিবারের পক্ষ থেকে আজকের দিনের জন্যে রইলো সমস্ত শিশুদের জন্যে আমাদের আন্তরিক ভালোবাসা।

Leave a Reply

%d bloggers like this: