ট্যান থেকে মুক্তি চান?

গরম মানে সূর্যের তাপ, এর ফলে ত্বকের এক খারাপ অবস্থা। সানস্ক্রিন। কিন্তু তাতেই ত্বকের যত্নকে আটকে রেখে লাভ হবে না। সমুদ্রে না গিয়ে অনেকেই পারেন না। কিন্তু চড়া রোদ আর নোনাজলে ত্বকের আরো খারাপ অবস্থা, কি করবেন জেনে নিন।


এক্সফোলিয়েট


ভাল ট্যান রিমুভাল স্ক্রাব ব্যবহার করুন। সমুদ্রের ধার থেকে ঘুরে আসার পর মুখে যে কালো ছোপ পড়ে, সেটা আসলে স্কিন সেলের একটা বাড়তি লেয়ার। সেই শুষ্ক-রুক্ষ স্তর তুলতে হলে হালকা কোনও স্ক্রাব ব্যবহার করুন। হলুদ-চন্দন-কেশর এই তিনটে উপকরণের সঙ্গে দই এবং ওট্‌স মিশিয়ে বাড়িতেই লাগান। তবে স্ক্রাব কখনওই বেশি ঘষবেন না। তবে যাঁদের লালচে ছোপ পড়ে, তাঁরা সঙ্গে সঙ্গে ডাক্তার দেখান।

ডিটক্স


প্রচুর জল খান। বিশেষ করে কিউকাম্বার-লেমন ডিটক্স ওয়াটার। সাতদিন ২ লিটার করে খেলেই তফাত বুঝতে পারবেন। গ্রিন টি কিংবা ডাবের জলও ডিটক্স প্রসেসের জন্য খুব ভাল। তাছাড়া টকদই আর মরসুমি ফলের স্মুদি, ঘোল কিংবা রায়তাও ডিটক্স করবে ভিতর থেকে। অনেকের শুধু মুখে নয়, গোটা শরীরে ট্যানের কালো ছোপ পড়ে যায়। সেটা দূর করতে বডি প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। ভিতর থেকে ডিপ-ক্লিন্‌জ করতে এই ধরনের বডি প্যাক দারুণ। ত্বকের হারানো জৌলুস ধীরে ধীরে ফিরেও আসবে।

রিহাইড্রেট

সামুদ্রিক হাওয়ায় ত্বক শুষ্ক-রুক্ষ হয়ে যায়। যার থেকে ম্যাড়মেড়ে ভাব আসে। ট্যানের চেয়েও যেটা খারাপ! ত্বকের ডিহাইড্রেশন কাটাতে আর্দ্রতা বাড়ায় এমন ফেসপ্যাক বা ব়ডির‌্যাপ ব্যবহার করুন। ফেসপ্যাক ব্যবহার করুন সপ্তাহে তিনবার। আর বডির‌্যাপ একবার করে করালেই হবে। বিভিন্ন স্পা-সালোঁতে ট্যান রিমুভাল বডি ট্রিটমেন্টও হয়। সেগুলোর কম করে তিনটে সেশন নিলেও অনেকটা কাজ হবে। ত্বকের আর্দ্রতাও ফিরে আসবে। সঙ্গে চোখের চারপাশটাকেও একটু উজ্জ্বল করতে ফ্রিজে রাখা গ্রিন টি ব্যাগ, বরফ, আলু কিংবা শসার চাকতি ব্যবহার করুন। এগুলো ফ্রিজে রেখে ব্যবহার করলে পোড়া ত্বক অনেকটা আরাম পাবে। হাইড্রেশনও হবে। বারবার রিহাইড্রেট করা সম্ভব না হলে রোজ ওয়াটার দেওয়া ফেস মিস্ট সঙ্গে রাখুন। স্প্রে করে নেবেন প্রয়োজনমতো। রাতের বেলা শোওয়ার আগে কিন্তু স্কিন সেরাম এবং ময়েশ্চারাইজার মাস্ট

প্রোটেকশন


আরও ড্যামেজ আটকাতে ভাল সানস্ক্রিন লাগান। সেটা যেন এসপিএফ ৩০ হয় অন্তত। চেষ্টা করুন সুগন্ধি যোগ না-করা প্রডাক্ট ব্যবহার করতে। অনেকে অয়েলি স্কিনের কারণে ম্যাট জেল লাগান। রোদ থেকে ঘরে ফিরে একটু জিরিয়ে নিয়েই আগে টকদই মেখে নিন। যাঁদের স্কিন ল্যাকটোজ সহ্য করতে পারে না, তাঁরা এক টুকরো টমেটো লাগান মুখে। তবে কোনও মতেই ব্লিচ কিংবা স্কিন হোয়াইটনিং প্রডাক্ট ব্যবহার করবেন না। 

Leave a Reply

%d bloggers like this: